প্যান্টি লাইনার কেন ব্যবহার করা উচিৎ?

প্যান্টি লাইনার কেন ব্যবহার করা উচিৎ?

স্যানিটারি প্যাডের সাথে আমরা সবাই পরিচিত কিন্তু প্যান্টি লাইনারের সাথে? প্যান্টি লাইনার স্যানিটারি প্যাডের মতই দেখতে কিন্তু ছোট সাইজের এবং অনেক পাতলাও হয়ে থাকে। মূলত ভ্যাজাইনা ডিসচার্জের জন্য পড়া হয়, এর ফ্লো কম হওয়ায় তাই এর সাইজও অনেক ছোট হয়। আজকাল প্যান্টি লাইনার নিয়ে অনেক প্রশ্ন দেখছি, আশা করি সব কনফিউশন এই আর্টিকেলের মধ্যেই পেয়ে যাবেন। 

কেন প্যান্টি লাইনার ব্যবহার করা উচিৎ?

আমাদের অনেকের কাজের জন্য সারাদিন বাহিরে থাকা হয়। ভ্যাজাইনার ডিসচার্জের জন্য প্যান্টি ভিজে যায়, এতে করে ভ্যাজাইনার এরিয়াতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ সৃষ্টি হয়, যা পরবর্তীতে ভ্যাজাইনাতে বিভিন্ন প্রবলেম সৃষ্টি করে থাকে। তাই প্যান্টি লাইনার ব্যবহার করা উচিৎ। অনেক প্যান্টি লাইনারে এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপারটিজ রয়েছে, এতে ভ্যাজাইনাতে খারাপ ব্যাকটেরিয়া গ্রো করতে পারে না। 

প্যান্টি লাইনারে কি কি সুবিধা পাবেন? 

  • ভ্যাজাইনার ডিসচার্জ বেশি হলে, প্যান্টি লাইনার পড়ুন। এতে ভ্যাজাইনার এরিয়া ড্রাই থাকবে।
  • পিরিয়ডের আগে বা পরে হালকা কয়েক ফোঁটা রক্ত বের হয়, একে স্পোটিং বলে। এই সময় প্যান্টি লাইনার পড়ুন। এতে করে কিন্তু কাজের সময় আপনার মনোযোগ নষ্ট হবে না।
  • ওয়ার্কআউটের সময় হেভি লিফটিং, জাম্পিং এবং অন্য এক্টিভিটিসের জন্য ভ্যাজাইনা থেকে ডিসচার্জ বা ঘাম হয়। ঘামকে শুকে নিতে লাইনার বেশ হেল্পফুল। 
  • ট্রেভেলিং এর সময় প্যান্টি লাইনার আপনাকে স্বস্তি দিতে পারে।
  • অনেকের ইউরিন লিকেজের সমস্যা রয়েছে। তাদের জন্য প্যান্টি লাইনার সেভিয়ার হিসেবে কাজ করে।
  • পোস্ট পারটাম ব্লিডিং হওয়ার সময়ও প্যান্টি লাইনার পড়তে পারেন। পোস্ট পারটাম ব্লিডিং কে লুসিয়া (Lochia) বলে। লুসিয়া বাচ্চা প্রসবের পর ৮ সপ্তাহ থাকে। যেহেতু হেভি ফ্লো হয় না, তাই লাইনার ব্যবহার করতে পারেন। 

প্যান্টি লাইনার কি প্রতিদিন পড়া যাবে?

হ্যাঁ, এইটা প্রতিদিন পড়ার জন্যই। তবে কিছু জিনিস খেয়াল রেখে পড়া ভালো।

কখন এটা পড়া যাবে না- 

  • রাতে ঘুমানোর আগে অবশ্যই প্যান্টি লাইনার খুলে ঘুমাতে হবে। ভ্যাজাইনা এরিয়াতে বাতাস চলাচলের প্রয়োজন রয়েছে। এতে করে ইচিং বা র‍্যাশ হওয়ার স্মভাবনা থাকবে না। 
  • পিরিয়ডের সময়কালীন না পড়া যাবে না, কারন পিরিয়ডের সময় হেভি ফ্লো হয়ে থাকে।

কীভাবে প্যান্টি লাইনার পড়বেন? 

ভয় পাবার কিছুই নেয়। স্যানিটারি ন্যাপকিন যেভাবে পড়েন, ঐভাবেই পড়বেন। প্যান্টি লাইনারেও গ্লু দেয়া থাকে, প্যান্টির মধ্যে লাইনার লাগিয়ে নিবেন।

মনে রাখুন-

  • ৩ থেকে ৪ ঘন্টার পর প্যান্টি লাইনার চেঞ্জ করুন বা বেশি ভিজা অনুভব করলে চেঞ্জ করে ফেলুন। এতে করে কোন রকম ইনফেকশন হবে না। আর দরকার না পড়লে দিনের বেলা শুধু শুধু পড়ার দরকার নেয়। 
  • স্কিন যদি সেন্সেটিভ হয়, তাহলে অরগানিক প্যান্টি লাইনার পড়ুন। আর সেন্টেড প্লাস্টিক এড়িয়ে চলুন। এতে করে প্রাইভেট পার্টে কোন রকম রেডনেস, র‍্যাশ বা ইচিং হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না।

যেহেতু প্যান্টি লাইনার সম্পর্কে জানা হয়ে গিয়েছে, আশা করি নিজের জন্য নতুন একটি স্টেপ নিতে একদম দ্বিধাবোধ করবেন না। এখন প্যান্টি লাইনার কোথায় পাবেন? চিন্তা না করে lilacforyou.com এ গিয়ে অর্ডার করে ফেলুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *