ট্যাম্পন কীভাবে ব্যবহার করবেন?

বাজারে আজকাল অনেক নতুন নতুন প্রোড্যাক্ট দেখা যায়। যেমন- ম্যান্সট্রুয়াল কাপ, ট্যাম্পন, পিরিয়ড পান্টি। প্যাড ব্যবহার করার পাশাপাশী এখন অনেকেই এই প্রড্যাক্টগুলো প্রেফার করে থাকেন। আজকের আর্টিকেলে জানতে পারবেন, ট্যাম্পন কীভাবে ব্যবহার করবেন?

ট্যাম্পন কি?  

ট্যাম্পন ছোট টিউবের মত। এটি কটন বা রেয়ন ফেব্রিক দিয়ে তৈরি হয়। পিরিয়ডের ব্লাড শুষে নেয়ায় ট্যাম্পনের কাজ। ব্লাড শুষে নিলে ট্যাম্পন সাইজে বড় হয়ে যায়। ট্যাম্পন বেড়েল বা এপলিকেটর দিয়ে মুড়ানো থাকে। ম্যান্সট্রুয়াল কাপের মত এটাও ভ্যাজাইনার ভিতরে প্রবেশ করাতে হয়। ঠিকমত পড়তে পাড়লে ট্যাম্পন অনেক আরামদায়ক হয়।

কীভাবে ব্যবহার করবেন?

ক্লিন হাতে ট্যাম্পন ব্যবহার করতে হবে। হাঁটু গেড়ে বসে মানে ইস্কুয়াটিং পসিশনে (squirting position) বা এক পা কোথাও উঠিয়ে ট্যাম্পন ভিতরে প্রবেশ করান। প্রবেশের সময় বড় নিশ্বাস নিন, এতে নিজে রিলেক্স হবেন।

ট্যাম্পন ব্যবহারের সময় প্লাগারকে পুস করতে হবে। প্লাগার নামক পার্ট ট্যাম্পনকে এপ্লিকেটরের ভিতর দিয়ে পুস করে, অনেকটা সিরিঞ্জের মত। প্লাগার মুভ করার জন্য এপ্লিকেটরের গায়ে ফিংগার গ্রিপ থাকে, গ্রিপে ধরে আরেক হাত দিয়ে পুস করলেই ট্যাম্পন ভিতরে প্রবেশ হবে। ট্যাম্পুনের শেষ প্রান্তে লম্বা একটি সুতা থাকে, যা ধরে ট্যাম্পুন বের করতে হয়, একে স্ট্রিং বলে।

আর বের করার সময় সেইম পসিশনে বসে ট্যাম্পন বের করতে হবে।

কিছু ট্যাম্পন এপ্লিকেটর ফ্রি। যার ফলে, ফিংগার দিয়ে পুস করতে হয়।

ট্যাম্পন ব্যবহার করতে কি কোন কষ্ট হয়?

ট্যাম্পন ব্যবহারও করতে কোন কষ্ট হয় না। ইভেন কোন লুব্রিকেন্টেরও প্রয়োজন পড়ে না। ম্যান্সট্রুয়াল ফ্লুইডের কারণে সহজেই ভিতরে প্রবেশ করে।

ট্যাম্পন চেইঞ্জ কতক্ষণে করতে হবে?

ট্যাম্পন ব্যবহার করার আগে আপনার হাত ধুতে ভুলবেন না। আমাদের হাত ব্যাকটেরিয়ার আবাসস্থল; এমন পরিস্থিতিতে হাত না পরিষ্কার করে ট্যাম্পন ব্যবহার করলে যোনিপথ বা ভ্যাজাইনাতে সংক্রমণ হতে পারে। ৪ থেকে ৮ ঘণ্টা পর ট্যাম্পন চেইঞ্জ করতে হবে।

ট্যাম্পনের বেনিফিটস:

যারা প্যাড পরে স্বস্তি পাননা, তারা ট্যাম্পন ব্যবহার করতে পারেন।সাঁতার কাটার সময় প্যাড ভারি হয়ে যায়, এই ক্ষেত্রে ট্যাম্পন অনেক আরামদায়ক।

ট্যাম্পন আমাদের শরীরের ভিতরে হারিয়ে যেতে পারে?

আপনার শরীরের ভিতরে ট্যাম্পন হারানো অসম্ভব। সার্ভিক্স – যা একটি টিস্যু যা যোনির উপরের অংশে দেখা যায় -সার্ভিক্স পার হয়ে ট্যাম্পন ভিতরে প্রবেশ করা অসম্ভব। তাই ট্যাম্পন হারিয়ে যাওয়ার ভয়ও নেয়।

মনে রাখুন

·         ট্যাম্পন পুনরায় ব্যবহারযোগ্য নয়, তাই ব্যবহারের পর ঠিকমত ডাস্টবিনে ফেলতে হবে। 

·         ট্যাম্পন বিভিন্ন সাইজের হয়ে থাকে। হেভি বা লাইট ফ্লোয়ের উপর ডিপেন্ড করে। প্রথম দিকে বিভিন্ন সাইজ ব্যবহার করে, নিজের জন্য সঠিক সাইজ ঠিক করতে পারবেন।

ট্যাম্পন কারা ব্যবহার করতে পারবে না- 

ভ্যাজাইনাতে কোন রকম সার্জারি হয়ে থাকে, গর্ভপাত বা সন্তান জন্ম দিয়ে থাকেন তাহলে ট্যাম্পন ব্যবহার করবেন না। ব্যবহার করার আগে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন। 

আশা করি আজকের আর্টিকেলটি হেল্পফুল ছিল। পিরিয়ডের যাত্রায় ট্যাম্পন একবার ব্যবহার করে দেখুনই না। আপনার অভিজ্ঞতা আমাদের সাথে সেয়ার করুন। আর ভালো মানের ট্যাম্পনের জন্য Lilacforyou.com ওয়েবসাইট ঘুরে দেখতে পারেন।

Leave a Reply

Shopping cart

0
image/svg+xml

No products in the cart.

Continue Shopping