মেন্সট্রুয়াল কাপ নিয়ে যত প্রশ্ন 

পিরিয়ডের সময় আমরা সবাই প্যাড ব্যবহার করি। কিন্তু কাজের মাঝে বার বার প্যাড চেঞ্জ করা খুব বিরক্তিকর কাজ। আজকাল অনেকেই আবার মেন্সট্রুয়াল কাপ ব্যবহার করে থাকেন। সঠিক ধারনা না থাকায়, অনেকেই বুঝে উঠতে পারেন না, কোন সাইজটা নিজের জন্য, কীভাবে ক্লিন করতে হবে, কীভাবে পড়তে হবে।

মেন্সট্রুয়াল কাপ ব্যবহারের আগে আমার মনে বেশ কয়েকটি প্রশ্ন ছিল।এই প্রশ্নগুলো নিয়েই আজকের আর্টিকেলটি লেখা। 

মেন্সট্রুয়াল কাপ কি? 

একটি কাপ কীভাবে পিরিয়ডের ব্লাড ক্যারি করবে? দীর্ঘ সময়ের জন্য মেন্সট্রুয়াল কাপের কাজ হচ্ছে ব্লাড ক্যারি করা । এই প্রড্যাক্টটি সিলিকন বা রাবার বা ল্যাটেক্স দিয়ে তৈরি, তাই এটি একটি ইকো ফ্রেন্ডলি প্রড্যাক্ট। এটি পুনরায় ব্যবহারযোগ্য মানে ক্লিন করে আবার ব্যবহার করতে পারবেন। 

কাপের সাইজ কীভাবে নির্ধারণ করবেন? 

মেন্সট্রুয়াল কাপ ২টি সাইজের হয়ে থাকে:

  • ছোট- ছোট সাইজকে 1 বা A বলা হয়
  • বড়- বড় সাইজকে 2 বা B বলা হয় 

কোন বয়সে কোন সাইজের কাপ ব্যবহার করবেন? 

বয়স আর কিছু ফ্যাক্টের উপর নির্ভর করে কাপ নির্ধারণ করতে হয়। 

ছোট সাইজের কাপের ক্ষেত্রে- 

  • বয়স ৩০ এর নিচে হলে
  • ব্লাড ফ্লো লাইট টু মিডিয়াম হলে

বড় সাইজের কাপের ক্ষেত্রে- 

  • বয়স যদি ৩০ এর উপর হলে
  • আর যদি মা হয়ে থাকেন

কতক্ষণ পর পর কাপ পরিবর্তন করতে হয়? 

এই কাপ কিন্তু অন্যান্য মাধ্যম থেকে বেশি ব্লাড ধারণ করে রাখে। ফ্লো যদি লাইট টু মিডিয়াম হয়, তাহলে ১২ঘন্টা পর্যন্ত ব্লাড ক্যারি করে থাকবে, আর যদি ফ্লো বেশি হয় তাহলে ৫-৬ ঘন্টা পর পরিবর্তন করতে হবে। পরিবর্তন করা মানে পরিষ্কার করে আবার ব্যবহার করতে পারবেন। 

কাপ ফোল্ড কীভাবে করবেন? 

কাপ ফোল্ড ঠিকমত না করতে পাড়লে লিকেজ হওয়ার স্মভাবনা বেড়ে যায়। তাই আগে জেনে নিন ফোল্ড করার উপায়গুলো। 

উপায় ১- 

পাঞ্চ ফোল্ড ডাউনঃ রিমটিকে নিচের দিকে ঠেলে ধরুন এবং যতটুকু পাড়ুন নিচের দিকে নিন। সাথে দুই সাইড ছেপে ধরুন। এতে কাপের সাইজ অনেকটাই ছোট হয়ে আসবে। সহজেই ভ্যাজাইনার ভিতরে প্রবেশ করবে।  

উপায় ২-

সেভেন (7) ফোল্ডঃ মেন্সট্রুয়াল কাপ চেপে দুই ভাগ করে নিন। আবার আরেক ভাগ করে নিন। এতে দেখতে সেভেনের (7) আকৃতি ধারণ করবে। 

উপায় ৩- 

সি (C) ফোল্ডঃ দুই দিক থেকে চেপে দুই ভাগ করে নিন, এতে সি (c) আকৃতি ধারণ করবে। 

নিজের কমফোর্ট অনুযায়ী ফোল্ড পার্ট চুজ করে নিন। এতে ব্যবহার করা সহজ হবে। 

কীভাবে ব্যবহার করবেন? 

নিজের পছন্দের ফোল্ডিং প্রসেস দেখে মেন্সট্রুয়াল কাপটি ফ্লোড করে নিন। হাঁটু গেড়ে বসে বা কমোডের উপরে এক পা তুলে দিয়ে বসে আস্তে আস্তে কাপ প্রবেশ করান। প্রবেশের পর পর হালকা করে ঘুড়িয়ে দিন। এতে কাপ খুলে হয়ে যাবে, লিকেজ হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না। 

ঠিকমত পরতে পারলে কোন কিছুই ফিল করবেন না, আরও কমফোর্টেবলভাবে রেগুলার লাইফ লিড করতে পারবেন। 

এবার বের করার পালা-

ক্লিন হাতে বের করতে হবে; হালকা পিঞ্চ করে এর পর তর্জনী এবং বুড়ো আঙুল দিয়ে বের করে নিতে হবে। এরপর ক্লিনিং প্রসিডিউর ফলো করে ক্লিন করে আবার ব্যবহার করুন। 

মেন্সট্রুয়াল কাপটি কীভাবে ক্লিন করবেন?  

মেন্সট্রুয়াল কাপ ব্যবহার করার আগে অবশ্যই জীবাণুমুক্ত করে নিতে হবে। এতে করে কোন ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না। ব্যবহারের পর কিছুক্ষণ পানির সাথে ফুটিয়ে নিন, আর ব্যবহারের এর আগে মুছে নিয়ে এরপর ব্যবহার করুন।    

পিরিয়ড শেষ হলে কোন ব্যাগ বা কাপড়ে পেঁচিয়ে রেখে দিন। 

একটি কাপ কত দিন ব্যবহার করতে পাড়বেন?

মেন্সট্রুয়াল কাপ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পাওয়া যায়। কোয়ালিটির উপর ডিপেন্ড করে একটি কাপ ৫ থেকে ১০ বছর পর্যন্ত ব্যবহার করা যায়। যদি কোন কারনে ডিসকালার হয়ে যায় তাহলে কাপ পরিবর্তন করুন।

কাদের মেন্সট্রুয়াল কাপ ব্যবহারে অসুবিধা হতে পারে-

  • যারা মেরিড না, তাদের কাপ ভিতরে প্রবেশ করাতে অনেক  সময় অসুবিধা হতে পারে।
  • আবার ব্রাথ কন্ত্রোলার আইইউডি (IUD) থাকে, সেই ক্ষেত্রেও কাপ ভিতরে প্রবেশ করাতে অসুবিধা হতে পারে। কিন্তু মেন্সট্রুয়াল কাপ ব্যবহার করতে পারবেন।

মেন্সট্রুয়াল কাপ কারা ব্যবহার করতে পারবে না- 

যদি ভ্যাজাইনাতে কোন রকম সার্জারি হয়ে থাকে, গর্ভপাত বা সন্তান জন্ম দিয়ে থাকেন তাহলে কাপ বা ট্যাম্পন ব্যবহার করা উচিত না । ব্যবহার করার আগে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন। 

আশা করি আর্টিকেলটি পড়ার পর মেন্সট্রুয়াল কাপ নিয়ে আর কোন কনফিউশন নেই। আর কোন প্রশ্ন থাকলে Lilacforyou.com এ ইনবক্স করতে পারেন। ভালোমানের মেন্সট্রুয়াল কাপ কিনুন এখন ঘরে বসেই।

Leave a Reply

Shopping cart

0
image/svg+xml

No products in the cart.

Continue Shopping